রাত ১১:০৮
বন্ধ হচ্ছে গ্রামীণফোনের বিজ্ঞাপনঅধ্যাপক আনিসুজ্জামানের জন্মদিনবিরক্তিকর সহকর্মীকে মোকাবিলার কৌশল কি?আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে চলাচলে নির্দেশনাআমিরাতে চালু হচ্ছে শ্রমবাজারবিশ্ব ইজতেমা আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হচ্ছে আজসংরক্ষিত নারী আসনে ৪৯ নারী সংসদ নির্বাচিতআবুধাবি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রীদক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ভূমিকম্পের ৪.৭ মাত্রাগুজব শেয়ার দিলে পরিণতি হবে ভয়াবহ

যাঁদের রক্তের বিনিময়ে দেশ তাঁদের কবরের পাশে ময়লার ভাগাড়!

ডেস্ক: নরসিংদীর রায়পুরায় মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী শহীদদের গণকবরের পাশে অবাধে ফেলে রাখা হচ্ছে বাসাবাড়ির ময়লা-আর্বজনা। উপজেলার প্রাণকেন্দ্র মেথিকান্দা রেলওয়ে স্টেশনের পাশেই এই কবরের অবস্থান।

এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এ গণকবরের পূর্ব দিকে গড়ে উঠেছে অনেকগুলো বহুতল ভবন। আর ওইসব ভবনের ভাড়াটিয়ারা তাদের উচ্ছিষ্ট খাবার,অপচনশীল পলিথিন,প্লাস্টিকের বোতল ও আর্বজনা ফেলছেন গণকবরের সামনে। ফলে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ ও নষ্ট হচ্ছে স্থানটির সৌন্দর্য। বর্তমানে গণকবরের সামনের অংশ ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে।

যাঁদের রক্তের বিনিময়ে দেশ পেয়েছে স্বাধীনতা ও লাল সবুজের পতাকা, তাঁদের স্মৃতিবিজড়িত গণকবরটি অযত্নে অবহেলায় পড়ে রয়েছে। এর সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ ও স্থানটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পবিরার।

রায়পুরা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার যোদ্ধাহত মো. নজরুল ইসলাম বলেন, উপজেলা পরিষদের সামনে অবস্থিত কবরের এ পরিস্থিতি আমাদের জন্য লজ্জাজনক। বিশেষ দিবস এলে আমরা শহীদের স্মরণ করি তারপর ভুলেই যায় তাঁদের অবদান। উপজেলা প্রশাসনের দায়িত্ব শুধু বিশেষ দিন নয়, সারাবছরই যেন স্থানটি যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়।

রায়পুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, গণকবরের পাশে আর্বজনা ফেলে রাখা দেশ ও জাতির জন্য অপমানজনক। আমি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
সূত্র: কালেরকন্ঠ

Top