সকাল ৯:৩৯
বিএনপি’র শুভ বুদ্ধির উদয় হবে : আইনমন্ত্রীদুর্নীতির বিরুদ্ধে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা : প্রধানমন্ত্রীদুর্নীতির বিরুদ্ধে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করবোস্ত্রীর জন্মদিন ভুললেই ডিভোর্স!স্বজনপ্রীতি হচ্ছে দুর্নীতির উল্টো পিঠযেই দুর্নীতি করুক ছাড় দেয়া হবে না : গণপূর্তমন্ত্রীআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৯ এর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভাপ্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হলেন জয়সৌদির ধর্মত্যাগী সেই কিশোরী নাম পাল্টালেনজাতিসংঘের এক তৃতীয়াংশ কর্মীই যৌন হয়রানির শিকার

আস্থা ভোটে টিকে গেলেন মে

ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের সংসদে অনুষ্ঠিত আস্থা ভোটে টিকে গেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। বুধবার (১২ ডিসেম্বর) এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

ব্রিটিশ হাউজ অব কমন্সে কনজারভেটিভ পার্টির ২০০ জন সংসদ সদস্য থেরেসা মের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। ১১৭ জন বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়, এই ফলাফলের মাধ্যমে আরও অন্তত এক বছরের জন্য কনজারভেটিভ পার্টির সংসদীয় প্রধানের পদ নিশ্চিত করলেন মে। এই সময়ের মধ্যে তার বিরুদ্ধে আর নতুন করে আস্থা ভোটের দাবি গৃহীত হবে না।

মূলত ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়ার শর্ত নির্ধারণে যে ব্রেক্সিট যুক্তির খসড়া প্রস্তুত করেছেন, তা নিয়েই অনাস্থার সূত্রপাত। এনিয়ে দুই দুই জন ব্রেক্সিটবিষয়ক মন্ত্রীর পাশাপাশি পদত্যাগ করেছিলেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীও। এই ধারা থেমে থাকেনি। একে একে আরও কয়েকজনের সঙ্গে সর্বশেষ যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞান ও বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী পদত্যাগ করেন মের ব্রেক্সিট বিষয়ক চুক্তির বিরোধিতা করে।

এমন অবস্থায় এক সময় ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যরাই তার বিরুদ্ধে অনাস্থা জানান।

আস্থা ভোটের ডাক দেওয়ার জন্য দরকার ছিল ৪৮ জন কনজারভেটিভ পার্টির সংসদ সদস্যের আবেদন। দলের কাছে সেই ৪৮ জনের আবেদন জমা পড়ার প্রেক্ষিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভোটাভুটি। টিকে থাকার জন্য মের দরকার ছিল ১৫৯ ভোট।

১৭৪ জন টোরি এমপি ভোটের আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, তারা মের পক্ষে ভোট দেবেন। আর বিপক্ষে ভোট দেওয়ার কথা প্রকাশ্যে জানিয়েছিলেন ৩৪ জন।

আস্থা ভোটে দলের ২০০ জন সংসদ সদস্য মের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। কিন্তু বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছেন ১১৭ জন।

ফলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মে ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন চুক্তি, বিশেষ করে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডর বিষয়টি নিয়ে ইইউ নেতাদের সঙ্গে আবার আলোচনায় বসতে পারবেন।

Top