সকাল ১০:১০
বিএনপি’র শুভ বুদ্ধির উদয় হবে : আইনমন্ত্রীদুর্নীতির বিরুদ্ধে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা : প্রধানমন্ত্রীদুর্নীতির বিরুদ্ধে সবরকম ব্যবস্থা গ্রহণ করবোস্ত্রীর জন্মদিন ভুললেই ডিভোর্স!স্বজনপ্রীতি হচ্ছে দুর্নীতির উল্টো পিঠযেই দুর্নীতি করুক ছাড় দেয়া হবে না : গণপূর্তমন্ত্রীআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৯ এর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভাপ্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা হলেন জয়সৌদির ধর্মত্যাগী সেই কিশোরী নাম পাল্টালেনজাতিসংঘের এক তৃতীয়াংশ কর্মীই যৌন হয়রানির শিকার

আফগানদের মুখোমুখি বাংলাদেশ

ডেস্ক: আবারও আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলতে নামছে বাংলাদেশ। স্বস্তির বিষয়টা হলো আগের ম্যাচটি গুরুত্বহীন থাকায় হেরে গিয়েও সমস্যায় পড়তে হয়নি। কিন্তু রবিবার আফগানদের কাছে হেরে গেলেই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেবে বাংলাদেশ। একই অবস্থা আফগানিস্তানেরও। দুই দলই সুপার ফোরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেছে। তাই দু’দলের জন্যই ম্যাচটি বাঁচা-মরার লড়াই। রবিবার বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৫টায় শুরু হবে ম্যাচটি। সম্প্রচার করবে বিটিভি, গাজী টিভি ও মাছরাঙা।

নানামুখী চাপে বিধ্বস্ত বাংলাদেশ এই ম্যাচে নিজেদের উজাড় করে দিতে পারলেই কেবল জয় সম্ভব। যদিও কঠিন পরিস্থিতিতে পড়া যাওয়া বাংলাদেশ আফগানদের বিপক্ষে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। আগের দুই ম্যাচের ব্যাটিং বিপর্যয় থেকে মুক্তি পেতে টিম ম্যানেজমেন্ট দুই ওপেনারকে উড়িয়ে এনেছে। শনিবার রাতে দলের সঙ্গে যোগ দিলেও বিকালে আফগানদের বিপক্ষে ইমরুলের খেলার সম্ভাবনা বেশ জোড়ালো।

আগের ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ২৫৬ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বাংলাদেশ ১১৯ রানে গুটিয়ে গেছে। আগের তিন টি-টোয়েন্টির ধারাবাহিকতায় গত ম্যাচেও আফগান স্পিন জুজুর কাছে পরাজিত হতে হয়েছে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। রবিবার টাইগারদের চ্যালেঞ্জ জানাবেন আফগানিস্তানের তিন স্পিনার রশিদ খান, মুজিব উর রাহমান ও মোহাম্মদ নবী। তাকে সামলাতে ব্যাটসম্যানদের চোখ কান খোলা রেখেই ব্যাটিং করতে হবে। টুর্নামেন্টে তিনজনই এখন পর্যন্ত ওভার প্রতি সাড়ে তিনের বেশি রান দেননি। রশিদ ও মুজিবকে খেলা রীতিমতো অসম্ভব হয়ে উঠছে। শুধু তাই নয় আফগান পেসার আফতাব আলমও দুর্বোধ্য হয়ে উঠছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের জন্য।

টিম হোটেলের লবিতে ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন নিজেই আফতাব প্রসঙ্গে তুলে আনলেন, ‘আমরা তো ভেবেছিলাম, রশিদ খান সমস্যা করবে। এখন তো দেখছি আফতাব আলমও আমাদের জন্য ফ্যাক্টর হয়ে উঠছে।’ গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ডানহাতি এই পেসার বেশ ভুগিয়েছেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। ৫ ওভার বোলিং করে মাত্র ১১ রান খরচায় ওপেনার লিটন দাসকে তুলে নেওয়ার পর বাকি কাজটুকু সামলান রশিদ খানরা।

এমন ফর্মে থাকা আফগানিস্তানের প্রশংসা করলেও সাকিব নিজেদেরকেই এগিয়ে রাখছেন, ‘এই টুর্নামেন্টে ওরা ভালো ক্রিকেট খেলছে। তবে ওদের চেয়ে আমরাই এগিয়ে। আশা করি কালকে তিন বিভাগে ভালো ক্রিকেট খেলে জয়ের ধারায় ফিরতে পারবো।’

তবে জয়টা যে সহজ হবে না, একদিন আগে অধিনায়ক মাশরাফি তারই ইঙ্গিত দিয়েছেন, ‘আফগানিস্তানের স্পিনারদের বিপক্ষে আগামী ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের আরও কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। সুতরাং মানসিকতার উন্নতি ঘটিয়ে আমাদের খেলতে হবে। নিজেদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারলেই জয়টা সহজ হয়ে যাবে।’

আফগানদের বিপক্ষে এই ম্যাচ জিততে গেলে বাংলাদেশের ব্যাটিং বিভাগে উন্নতি আবশ্যিক। অন্য দলগুলো যেখানে স্ট্রাইক রোটেট করে সিঙ্গেল ও ডাবল নিয়ে রানের চাকা সচল রাখছে, সেখানে বাংলাদেশ চলছে উল্টো পথে। এই সমস্যার সমাধান আজ না হলে ম্যাচ জেতা কঠিন হয়ে পড়বে টাইগারদের। আফগানিস্তানের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ১৭১টি ডট বল দিয়েছিল বাংলাদেশ। সুপার ফোরে ভারতের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে সেখানে ডটবলের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯০টি। এই ডট বলের চক্র থেকে আজ মুক্তি পেতে হবে বাংলাদেশকে। নয়তো এশিয়া কাপ থেকে খালি হাতেই দেশে ফিরতে হবে!

Top