দুপুর ১:৩৭
শেখ হাসিনাকে কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছাওষুধ ছাড়াই সাইনাস দূর করবেন যেভাবেসড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন ১৯ জানুয়ারিভারত সফরে যাচ্ছেন সিইসিমানবকণ্ঠের সম্পাদক আবু বকর চৌধুরী আর নেইনিরাপদ নয় চেহারা শনাক্তকরণ প্রযুক্তিসংরক্ষিত নারী আসনে আলোচনায় সংস্কৃতি অঙ্গনের তারকারানারী আসনে আওয়ামী লীগের ফরম বিক্রি শুরুসাংবাদিকদের ওয়েজবোর্ড ও আবাসনের সুখবর শোনালেন তথ্যমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে মামলার কার্যক্রম চলবে

ডেস্ক: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে অবস্থিত অস্থায়ী ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে আইনজীবীরা তার প্রতিনিধিত্ব করতে পারবেন।

গত দুই তারিখের ন্যায় আজও (বৃহস্পতিবার) কারাগারে অবস্থিত অস্থায়ী এ আদালতে উপস্থিত হননি খালেদা জিয়া। পরে কারা কর্তৃপক্ষ এক কাস্টডি ওয়ারেন্ট পাঠিয়েছে। কাস্টডি ওয়ারেন্টে বলা হয়েছে, খালেদা জিয়া আদালতে আসতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় একটি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক হারুন-অর-রশীদ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১৪ সালের ১৯ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায়।

এছাড়া দুদকের দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসানকে গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। রায়ের পর থেকে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন তিনি।

Top