সন্ধ্যা ৭:২৪
পবিত্র আশুরা শুক্রবারখালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে মামলার কার্যক্রম চলবেএকজন নারী দেহরক্ষীর গোপন জীবনদুই রাষ্ট্রদূতের রাষ্ট্রপতির কাছে পরিচয়পত্র পেশসুস্থ চোখে পৃথিবীর সৌন্দয্য উপভোগ করুনটাইগারদের ভাবনায় এখন সুপার ফোরমালয়েশিয়ায় বিষাক্ত মদপানে বাংলাদেশিসহ ২১ জনের মৃত্যুতিন দিনের সফরে রংপুর গেলেন এরশাদ‘যৌনতায় অপটু’ ট্রাম্প; ফের বোমা ফাটালেন স্টর্মিসংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল ২০১৮ পাস

কুয়াকাটা সৈকত জুড়ে পর্যটকের উপচে পড়া ভীড়

কলাপাড়া পটুয়াখালী প্রতিনিধি:  বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে ঈদুলু ফিতরের ছুটিতে দেশী-বিদেশী পর্যটকদের পদচপরনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের বেলাভ‚মি সাগরকন্যা কুয়কাটা। সেই সাথে বাড়ি ফেরা মানুষ ও স্থানীয়দেরও কমতি নেই পর্যটন স্পটগুলোতে। আর এ পর্যটকের ভাড়ে কুয়াকাটার পর্যটন শিল্প যেন ফিরে পেয়েছে নতুন করে প্রানচাঞ্চলতা। বিরাজ করছে উৎসব মুখর পরিবেশ।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, ঈদের এই ছুটিতে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ভ্রমন পিপাসু নানা বয়সের হাজার মানুষ সমুদ্র সৈকত কুয়াকাটার নৈসর্গিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে ছুটে এসেছেন।
কেউ নিজে, কেউ পরিবার পরিজন নিয়ে, কেউ বা নিজের পছন্দের মানুষটিকে নিয়ে দেখতে এসেছেন সাগর কন্যা কুয়াকাটা। পর্যটকদের উপচে পড়া ভীড়ে কুয়াকাটা খাবার হোটেলসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে কেনা বেচার ধুম পড়েছে। অধিকাংশ হোটেল, মোটেলের রূম আগাম বুকিং হয়ে যাওয়ায় সদ্য কুয়াকাটায় ভ্রমনে আসা পর্যটকদের ভালো রূম পেতে কষ্ট হলেও কুয়াকাটার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সব দু:খ ভুলিয়ে দিয়েছে।
পর্যটকদের আনন্দ-উচ্ছাসে গোসল করতে দেখে গেছে। কুয়াকাটা জিরো পয়েন্টে শ্রীমঙ্গল বৌদ্ধবিহার, মিশ্রিপাড়া সিমা বৌদ্ধ বিহার, জাতীয় উদ্যান, লেম্বুর চর, শুটকি পল্লী, রাখাইন মহিলা মার্কেট, গঙ্গামতি, কাউয়ারচর, লাল কাকড়ার চর, ইলিশ পার্ক সহ পর্যটন স্পটগুলো এখন পর্যটকদের ভাড়ে  মুখরিত হয়ে আছে। আর এ সব পর্যটকের নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তায় কাজ করছে কুয়াকাটা  ট্যুরিস্ট পুলিশ।
তবে পাখিমারা থেকে মহিপুর পর্যন্ত ১১ কিলোমিটার সড়ক ব্যবস্থা সংস্কার অথবা নতুন করে নির্মানের কথা জানিয়েছেন অনেক পর্যটক। এছাড়া সৈকতে জেগে ওঠা পুরনো স্থাপনার অংশ অপসারনের দাবি জানিয়েছেন অনেকে।
ময়মনসিংহ থেকে স্বপরিবারে ঘুরতে আসা মো. কিবরিয়া বলেন, কুয়াকাটার ভাঙ্গন রক্ষায় সরকারের ব্যবস্থা নেয়া উচিত। তবে সৈকতে জেগে ওঠা পুরনো স্থাপনার ভগ্নাংশ অপসারন করা উচিত। আমাদের গোসল করতে অনেক কষ্ট হয়েছে। গোসল করতে গিয়ে কয়েকজনের পা কেটে গেছে। আরেক পর্যটক রহমান মিয়া জানান, কুয়াকাটা আসলেই একটা দর্শনীয় স্থান। কিন্তু পাখিমারা থেকে মহিপুর পর্যন্ত সড়কের অবস্থা খুবই খারাপ। তবে কুয়াকাটার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আমাদের সব কষ্ট ঘুচিয়ে দিয়েছে।
কুয়াকাটা ট্যুরিষ্ট পুলিশের এস আই নজরুল ইসলাম জানান, সৈকতে পর্যটকদের নির্বিঘেœ চলাফেরা এবং অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে দিকে সার্বক্ষনিক নজর রাখা হচ্ছে। এছাড়া পর্যটকের নিরাপত্তায় কুয়াকাটার বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
Top