রাত ৪:৫৭
আগামী মাস থেকে এলএনজির সরবরাহ শুরু: নসরুল হামিদআম নয়, আঁটির উপকারিতা জেনে নিনদিল্লির নেতৃত্ব ছাড়লেন গৌতম গম্ভীরইউটিউব দেখে পার্সেল বোমা বানানো সেই শিক্ষক গ্রেফতারতারেকের বাংলাদেশি নাগরিকত্ব নেই : আইনমন্ত্রীছাত্রীকে এসিড ছোড়ার মামলায় একজনের যাবজ্জীবনপাসপোর্ট নিতে হলে অবশ্যই দেশে আসতে হবেতিনদিনের সফরে অস্ট্রেলিয়া পথে প্রধানমন্ত্রীরাষ্ট্রপতির টুঙ্গিপাড়া সফর স্থগিতবড়পুকুরিয়া কয়লাখনি শ্রমিক ও ক্ষতিগ্রস্তদের সংবাদ সম্মেলন

রাখাইনে রোহিঙ্গা হত্যার দায়ে মিয়ানমারের ৭ সেনার কারাদণ্ড

প্রথমকথা ডেস্ক: রাখাইনে ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যার দায়ে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সাত সেনা কর্মকর্তাকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। মিয়ানমারের সরকারি গণমাধ্যম গ্লোবাল লাইট অব মিয়ানমার-এর উদ্ধৃতি দিয়ে বুধবার এ খবর প্রকাশ করেছে সিএনএন।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে রাখাইনের রাজধানী সিত্তে থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার উত্তরে ইন দিন গ্রামে গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। সেখানে ১০ রোহিঙ্গার লাশ ছিল। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অভ্যন্তরীণ অনুসন্ধানে প্রমাণিত হয়েছে, সাত সেনা কর্মকর্তা ওই ১০ রোহিঙ্গা হত্যার সঙ্গে জড়িত। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সাজাপ্রাপ্ত সাতজনের মধ্যে চারজন অফিসার এবং বাকি তিনজন সৈনিক। সাজা দেওয়ার পাশাপাশি মিয়ানমার সেনাবাহিনী থেকে তাদের বরখাস্ত করা হয়েছে।

ওই ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তা এবং স্থানীয় কিছু বাসিন্দাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে তাদেরকে এখনও দণ্ডিত করা হয়নি।

গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনে নির্বিচারে রোহিঙ্গা নিধন শুরু করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে সাড়ে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশু বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের শত শত গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। শত শত নারীকে ধর্ষণ করা হয়েছে তাদের উৎখাত করার অস্ত্র হিসেবে। জাতিসংঘ সেনা অভিযানকে আখ্যা দিয়েছে জাতিগত নিধন বলে। তবে সেনাবাহিনীর গণহত্যা বা জাতিগত নিধন অভিযানের কথা বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে মিয়ানমারের নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সু চির সরকার।

Top