রাত ৪:৪৬
আগামী মাস থেকে এলএনজির সরবরাহ শুরু: নসরুল হামিদআম নয়, আঁটির উপকারিতা জেনে নিনদিল্লির নেতৃত্ব ছাড়লেন গৌতম গম্ভীরইউটিউব দেখে পার্সেল বোমা বানানো সেই শিক্ষক গ্রেফতারতারেকের বাংলাদেশি নাগরিকত্ব নেই : আইনমন্ত্রীছাত্রীকে এসিড ছোড়ার মামলায় একজনের যাবজ্জীবনপাসপোর্ট নিতে হলে অবশ্যই দেশে আসতে হবেতিনদিনের সফরে অস্ট্রেলিয়া পথে প্রধানমন্ত্রীরাষ্ট্রপতির টুঙ্গিপাড়া সফর স্থগিতবড়পুকুরিয়া কয়লাখনি শ্রমিক ও ক্ষতিগ্রস্তদের সংবাদ সম্মেলন

‘জন্মসাথী’ যুদ্ধশিশুদের একধরণের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি

ডেস্ক: মুক্তিযুদ্ধের অনেক অজানা কাহিনির সঙ্গে চাপা পড়ে আছে যুদ্ধশিশুদের ইতিহাস। সেই অজানা অধ্যায় উন্মোচনের চেষ্টাই করা হয়েছে জন্মসাথী প্রামাণ্যচিত্রে।
২০১৬ সালের শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাচ্ছে নির্মাতা শবনম ফেরদৌসির ‘জন্মসাথী’।
তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় নির্মাতা গ্লিটজকে বলেন, “জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া নিঃসন্দেহে বড় স্বীকৃতি ও আনন্দের। আমার ‘জন্মসাথী’ অর্থাৎ যুদ্ধশিশু যারা তারা যদি জনসমক্ষে কথা বলতে রাজী না হতেন তাহলে এটি নির্মাণ করা সম্ভব হতো না। আমি বলবো, এ পুরস্কার যুদ্ধশিশুদের একধরণের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি। রাষ্ট্র তাদের সম্মান জানালো এ প্রামান্যচিত্রের মাধ্যমে।”
চলচ্চিত্রটি নির্মাণে সহযোগিতার জন্য তাদের সহযোগিতা করার জন্য তিনি একাত্তর মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড ও মুক্তিযোদ্ধা জাদুঘরকে ধন্যবাদ জানান।
১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের একটি অনালোকিত অধ্যায় যুদ্ধশিশু। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর যাদের নীরবে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়, জন্মপরিচয় গোপন রেখে যাদের অনেকেই বেড়ে ওঠেন এদেশেই।
নিজভূমে আত্মপরিচয় সংকটে জীবনযাপন করা এইসব মানুষের সন্ধানে নেমেছিলেন প্রামান্যচিত্র নির্মাতা শবনম ফেরদৌসী।
তিনজন যুদ্ধশিশুকে খুঁজে বের করে তাদের পরিণত বয়সের মুখ থেকে শুনেছেন যুদ্ধের আরেক পরিণতির গল্প। সে গল্পই তুলে এনেছেন তার প্রামান্যচিত্র ‘জন্মসাথী’তে।
২০১৬ সালের মার্চে প্রামাণ্যচিত্র ‘জন্মসাথী’র প্রথম প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বিভাগীয় শহরগুলোতেও প্রদর্শন হয় এটি।
নির্মাতা শবনম ফেরদৌসী বর্তমানে নির্মাণ করছেন সরকারী অনুদানের চলচ্চিত্র ‘আজব সুন্দর’।

Top