রাত ৩:২৫
‘দহন’ থেকে বাদ পড়লেন বাঁধন!সাফল্য গাঁথা: ফরিদপুরের একজন অদম্য রোকেয়ার গল্প‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১১বার কাউন্সিল নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা ২৬ মেএইচবিআরআই খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদনহা-মীম গ্রুপের এমডিকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদমুক্তিযোদ্ধার অসম্মানজনক দাফনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : মোজাম্মেল হকরাজীবের দুই ভাইকে ক্ষতিপূরণের আদেশ স্থগিতযুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, এতিম ও আলেম-ওলামাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ইফতাররাশিয়ায় দাবানলে ২৩ হাজার হেক্টর বনাঞ্চল ধ্বংস

স্বাধীনতা বিরোধীরাই জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টায় জড়িত: প্রজন্ম ’৭১

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রখ্যাত লেখক ও শিক্ষক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টায় জড়িতরা স্বাধীনতাবিরোধী বলে মন্তব্য করেছেন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা। রবিবার (৪ মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রজন্ম ’৭১ আয়োজিত প্রতীকী সমাবেশে এ কথা বলেন বক্তারা।

প্রজন্ম ‘৭১ এর সহ-সভাপতি ও দৈনিক প্রথম কথা পত্রিকার ব্যবস্থাপনা সম্পাদক শহীদ সন্তান শমী কায়সার তার বক্তব্যে বলেন, একাত্তরের পরাজিত গোষ্ঠী এখনো আমাদের ভেতরে ঘাপটি মেরে লুকিয়ে আছে। অার যখনই সুযোগ মিলছে তখনই তারা ঝাঁপিয়ে পড়ে হামলা করছে। এই হামলা শুরু হয় পচাত্তরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার মাধ্যমে যার রেশ আজো রয়ে গেছে। তারা তখনই এই হামলা চালালো যখন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। তাই আমাদের আশপাশে অবস্থান করা এসব স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের  সন্ধান পেলেই আমাদের সচেতন হতে হবে এবং প্রতিহত করে মুক্তিযুদ্ধের চিন্তাকে এই দেশে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

শহীদ সন্তান ডাঃ নুজহাত চৌধুরী সম্পা বলেন, বাংলাদেশে শিক্ষক, লেখক, সাহিত্যক, বুদ্ধিজীবিদের উপর হামলা আজ নতুন নয়। ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর বাংলাকে মেধা শূণ্য করার যে পাঁয়তারা শুরু হয়েছিল তা আজও বিদ্যমান। এরই ধারাবাহিকতায় আজ জাফর ইকবালের উপর হামলা হয়েছে। এখনই ষড়যন্ত্রকারীদের টুঁটি চেপে ধরতে না পারলে তারা তাদের কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাবে। সতরাং আমরা এ ঘটনারে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। একই সাথে দোষীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত বলেন,‘পঁচাত্তরের পর থেকে ধারাবাহিকভাবে দেখে আসছি অনেককেই আহত হতে, নিহত হতে। শুধুমাত্র স্বাধীনতাবিরোধীদের পক্ষে সম্ভব এরকম রক্তপাত ঘটানো। রাজাকার, আল বদর, জঙ্গিগোষ্ঠীর আবাসস্থল এখানে (বাংলাদেশে) হতে পারে না। যেসব গর্ত থেকে এই সাপ আমাদের বারবার আঘাত করে, সেসব গর্ত বন্ধ করতে হবে। এই সরকারকে এই গর্তগুলো নিশ্চিহ্ন করতে হবে।’

মুক্তিযোদ্ধার সন্তান প্রয়াত মিশুক মুনীরের স্ত্রী মঞ্জুলী কাজী বলেন, ‘আজ আমরা কেন মুক্তভাবে কথা বলতে পারি না? আমরা কেন মুক্ত চিন্তা করতে পারি না? লিখতে পারি না? জাফর ইকবালের ওপর যে হামলা হয়েছে তা শুধু তার ওপর নয়, পুরো লেখক সমাজের ওপর এই হামলা। যারা এই কাজ করেছে তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী নয়।’

সমাবেশে বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে যে ধারাবাহিক রক্তপাত হচ্ছে তার সর্বশেষ শিকার জাফর ইকবাল। তিনি বিদেশে লোভনীয় জীবনের হাতছানি উপেক্ষা করে দেশের জন্য কাজ করছেন। কত অভাগা তিনি! বিনিময়ে এই (হামলা) পেয়েছেন! আজ বাংলাদেশের ৯৯ শতাংশ মানুষ ব্যথিত। ওই এক ভাগ জঙ্গিবাদের মূল উৎপাটন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরাই করবে। এদের এখানেই থামানো না গেলে দেশকে স্বাধীনতা-পূর্ববর্তী পাকিস্তান বানিয়ে ফেলবে বলে মন্তব্য করেন তারা।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন প্রজন্ম ’৭১-এর সহ-সভাপতি ও শহীদ মুনীর চৌধুরীর ছেলে আসিফ মুনীর, শহীদ সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেনের ছেলে প্রজন্ম৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ড. তৌহিদ রেজানুর, শহীদ ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে নুজহাত চৌধুরী শম্পা, অনল রায়হান, শহীদ সাংবাদিক সেলিনা পারভীনের সন্তান সুমন জাহীদ,  শহীদ সন্তান শেখ সালমা নাগির্স, শহীদ অাব্দুল ওয়াহাব তালুকদারের ছেলে মিজানুর রহমান তালুকদার, শহীদ সন্তাান অাইয়াজ মোঃ খান চঞ্চল, শহীদ সন্তান এড.বসির অাহমেদ, শহীদ সন্তান নজরুল ইসলাম,  মুক্তিযোদ্ধা  সংসদ সন্তান কমান্ডের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মেহেদী হাসানসহ অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা।

এরপর বিকাল ৫টায় শাহবাগ প্রজন্ম চত্বরে বিক্ষুব্ধ নাগরিক সমাজের বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেন প্রজন্ম৭১ এর সদস্যগণ।

Top