রাত ১০:১৮
পবিত্র আশুরা শুক্রবারখালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে মামলার কার্যক্রম চলবেএকজন নারী দেহরক্ষীর গোপন জীবনদুই রাষ্ট্রদূতের রাষ্ট্রপতির কাছে পরিচয়পত্র পেশসুস্থ চোখে পৃথিবীর সৌন্দয্য উপভোগ করুনটাইগারদের ভাবনায় এখন সুপার ফোরমালয়েশিয়ায় বিষাক্ত মদপানে বাংলাদেশিসহ ২১ জনের মৃত্যুতিন দিনের সফরে রংপুর গেলেন এরশাদ‘যৌনতায় অপটু’ ট্রাম্প; ফের বোমা ফাটালেন স্টর্মিসংসদে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল ২০১৮ পাস

ফুলবাড়ীতে ৯বছরেও সাফল্য আসেনি মোবাইল স্বাস্থ্যসেবার

ফুলবাড়ী,দিনাজপুর প্রতিনিধি :দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে মোবাইল ফোনে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম। সাধারণ মানুষের সুবিধায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেওয়া ভাগ মোবাইল ফোন এখন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। মাঝে মধ্যে ফোন বাজলেও অন্য প্রাপ্ত থেকে কেউ রিসিভ করে না। ফলে মোবাইল স্বাস্থ্যসেবা চালুর ৯ বছর পরেও এ কার্যক্রমে কোন সাফল্য আসেনি। এতে চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ।
স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, মানুষের দোরগোড়ায় চিকিৎসাসেবা পৌঁছে দিতে ২০০৯ সালের মে মাসে দেশের ৪১৮টি জেলা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একযোগে মোবাইল ফোনে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম চালু করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এর ধারাবাহিকতায় ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চালু করা হয় মোবাইল ফোনে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম। ৫০শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যে মোবাইল ফোনটি দেওয়া হয়েছে তার নম্বর হলো ০১৭৩০ ৩২৪৬৩৯। নিয়ম অনুযায়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসকের কাছে থাকবে ওই ফোন। প্রয়োজনে যে কেউ যেকোন সময় ওই ফোনের মাধ্যমে চিকিৎসকদের কাছ থেকে জরুরি সেবা ও পরামর্শ নিতে পারবেন।
এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফোন নম্বর জনগণকে জানানোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ব্যানারসহ বিভিন্ন মাধ্যমে নম্বর প্রদর্শন ও প্রচারের জন্য সরকারি নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে তেমন কোন প্রচার প্রচারণা না থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘ ৯বছরেও সাফল্য আসেনি মোবাইল স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমের।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, দিনের বেশির ভাগ সময়ই এই ফোন বন্ধ থাকে। আবার কখনো খোলা থাকলেও অন্য প্রান্ত থেকে ফোন ধরে না কেউ। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা-কর্মচারিদের ব্যক্তিগত আলাপ ও অভ্যন্তরিণ যোগাযোগের কাজে এই মোবাইল ফোন ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এ ধরণের স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে অনেকেরই কোন ধারনা নেই। আবার যাদের ধারনা আছে তাদের অভিযোগ, ওই ফোন নম্বরে যোগাযোগ করে কাউকে পাওয়া যায় না।
উপজেলার বেতদীঘি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উপাধ্যক্ষ শাহ মো. আব্দুল কুদ্দুস বলেন, এইসেবা চালু থাকলে উপজেলার প্রত্যন্তাঞ্চলের মানুষ খুব উপকৃত হবে।
পৌর কাউন্সিলর আব্দুল জব্বার মাসুদ বলেন, মোবাইল ফোনে স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে প্রচার প্রচারণা না থাকায় জনপ্রিয়তা পায়নি। একজন জনপ্রতিনিধি হয়েও তিনি নিজেই এই স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে খুব একটা অবগত নন, তাহলে সাধারণ মানুষ কীভাবে জানবে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সঞ্জয় কুমার গুপ্ত’র ০১৭১৪১ ৪০৪৮৪৪ নম্বরের মুঠোফোনে কল করা হলেও রিং বাজলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় এ বিষয়ে তার কোন বক্তব্য নেওয়া যায়নি।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. নূরুল ইসলাম বলেন, জরুরি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারি মোবাইল ফোনটি নষ্ট হওয়ায় ফোনে জরুরি স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া যাচ্ছে না। তবে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের বড় বাবুকে দিনাজপুর থেকে নতুন মোবাইল ফোন কেনার জন বলা হয়েছে।

Top