দুপুর ২:১৩
প্রেমিকাকে সঙ্গে নিয়ে শতাধিক নারীকে ধর্ষণ করেছেন চিকিৎসকপ্যানেল মেয়র ওসমান গণির মরদহে দেশে পৌঁছেছেমুক্তি পাচ্ছে 'অন্ধকার জগত'আফগানদের মুখোমুখি বাংলাদেশচোখে ছানি পড়া রোধে করণীয়চিকিৎসার জন্য চেন্নাই যাচ্ছেন আফজাল শরীফলন্ডন থেকে নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী যাচ্ছেনপবিত্র আশুরা শুক্রবারখালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে মামলার কার্যক্রম চলবেএকজন নারী দেহরক্ষীর গোপন জীবন

টাকার চিন্তায় ডুবে থাকা মানুষই ফেসবুকে বেশি অ্যাক্টিভ: গবেষণা

ডেস্ক: “পার্থিব ভাবনায় বুঁদ মানুষেরা সাধারণের তুলনায় বেশি সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যায় করেন। ফেসবুকে বেশি সংখ্যক বন্ধু জোগার করার ঝোঁক থেকেই তাঁরা এটা করে থাকেন। বন্ধুর সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অধিকার কায়েম করার মানসিকতাও বৃদ্ধি পায় তাঁদের।”

শয়নে-স্বপনে টাকার নাম জপ করছেন যারা, তারাই ফেসবুকে সবথেকে বেশি সময় অতিবাহিত করেন। গবেষণায় উঠে এল এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য। জার্মানির রুর বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ফিলিপ ওজিমেকের মত, “পার্থিব ভাবনায় বুঁদ মানুষেরা সাধারণের তুলনায় বেশি সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যায় করেন। ফেসবুকে বেশি সংখ্যক বন্ধু জোগার করার ঝোঁক থেকেই তাঁরা এটা করে থাকেন। বন্ধুর সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অধিকার কায়েম করার মানসিকতাও বৃদ্ধি পায় তাঁদের।” গবেষণালবদ্ধ তথ্য এও বলছে যে, ফেসবুকে অন্যদের সঙ্গে নিজের তুলনা করাও বস্তুবাদী মানুষের একটি স্বভাব।

গবেষক ফিলিপ ওজিমেক মনে করেন, “পার্থিব দুনিয়ার মানুষদের কাছে সামাজিক অবস্থান পরিমাপ করার জন্য একমাত্র দাড়িপাল্লা হল ফেসবুক। তাই লাখো লাখো প্রোফাইলের কোটি কোটি তথ্য, বিনামূল্যে পাওয়া সম্ভব হচ্ছে ফেসবুকে।”

প্রাথমিক পর্যায়ে ২৪২ জন ফেসবুক ব্যবহারকারীর মধ্যে একটি প্রশ্নপত্র বিলি করেন গবেষকরা। যেখানে দেখা যায় অতিমাত্রায় ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বেশিরভাগ সময়ই ফেসবুকের বন্ধুদের সঙ্গে নিজের সামাজিক অবস্থানের তুলনা করছেন। এরপর দ্বিতীয় পর্যায়ে আরও ২৮৯ জনের মধ্যে সেই প্রশ্নপত্র ছড়িয়ে দিয়ে গবেষণা চালান গবেষক ও লেখক ওজিমেক। সেখানেও একই ফলাফল মেলে।

এই সমীক্ষা থেকে গবেষকরা বোঝার চেষ্টা করেন, ফেসবুক ব্যবহারের মাধ্যমে একজন মানুষ তাঁর লক্ষ্য এবং ধনবান হওয়ার আকঙ্খাকে কীভাবে চরিতার্থ করেন সে বিষয়টি। সমীক্ষাপত্রে গবেষক ওজিমেক জানান,”জীবনের আরও বাকি কাজের মতই ফেসবুক ব্যবহারও এই ধরনের মানুষের দৈনন্দিন কাজে পরিণত হয়েছে। এখানে মানুষ প্রতিটি মানুষকে ডিজিটাল অবজেক্ট হিসেবেই বিচার করে। আর সেই কারণেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য ফেসবুক বাসিন্দাদের সঙ্গে নিজের তুলনা করেন তাঁরা।”

Top