সকাল ৭:০৩
12-12-2017Issueওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে প্যারিসের পথে প্রধানমন্ত্রীশহীদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনের অপহরণ দিবস আজটাঙ্গাইল হানাদার মুক্ত দিবস আজরাষ্ট্রপতি ওআইসির সম্মেলনে যাচ্ছেন আজওয়ান প্লানেট শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে প্যারিসের পথে প্রধানমন্ত্রী11-12-2017Issueনিরাপত্তা ঝুকির চিঠি উপেক্ষাঃ উত্তরা নাটোর টাওয়ারে ভয়াবহ অগুন10-12-2017 issueবিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আশুলিয়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের যৌথ আলোচনা সভা

দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের শপথ

ডেস্ক: ‘বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের উত্তরসূরি হিসেবে সশ্রদ্ধচিত্তে শপথ করছি যে বাংলাদেশে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে সব উদ্যোগে আমি সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করতে সচেষ্ট হব। ’—একসঙ্গে দৃঢ়কণ্ঠে এই শপথবাক্য পাঠ করে সব ধরনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে থাকার প্রত্যয় ঘোষণা করেছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্দীপ্ত একঝাঁক তরুণ-তরুণী।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে দুর্নীতিবিরোধী এই অনুষ্ঠানে ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা এবং টিআইবির কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও শপথ নেন। এ সময় তাঁদের মাথায় ছিল লাল-সবুজের ক্যাপ, যাতে লেখা ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসাথে’।
জাতিসংঘ ঘোষিত ৯ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদ্যাপনের অংশ হিসেবে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
দুর্নীতিবিরোধী শপথবাক্য পাঠ করান টিআইবি ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারপারসন অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল। এ সময় টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান এবং উপদেষ্টা-নির্বাহী ব্যবস্থাপনা অধ্যাপক ড. সুমাইয়া খায়ের উপস্থিত ছিলেন।
শপথবাক্য পাঠ করানোর আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তরুণদের উদ্দেশে সুলতানা কামাল বলেন, ‘বাংলাদেশ যখন দুর্নীতিতে প্রথম বা পঞ্চম দশম হয়, সেটির দায় কিন্তু আমাদের সবার ওপরই এসে পড়ে। বাংলাদেশ দুর্নীতি করছে না; দুর্নীতি করছে এ দেশের মানুষ। তাই আমাদের নৈতিক দায়িত্ব এই অবস্থা থেকে উত্তরণ ঘটানো। এ জন্য তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে।
তিনি বলেন,‘আজকের তরুণসমাজ ভবিষ্যৎ বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেবে। কাজেই দেশের তরুণ সমাজকে দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এই অঙ্গীকার করতে হবে যে দুর্নীতি করব না, দুর্নীতি মানব না এবং দুর্নীতি প্রশ্রয় দেব না। এই মানসিকতা হৃদয়ের মধ্যে প্রোথিত করতে হবে।’
সবাইকে শপথ পড়ানোর পর তাদের উদ্দেশে সুলতানা কামাল বলেন, ‘এই শপথের যেন অবমাননা না হয়। ’ তিনি সারা দেশের তরুণদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে আরো দৃপ্ত শপথ ও পদক্ষেপ বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘দুর্নীতি প্রতিরোধে রাজনৈতিক ও সর্বস্তরের মানুষের সদিচ্ছা অনেক জরুরি। আইন বিভাগ, নিরাপত্তা বিভাগ সবাইকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দিতে হবে। ’
তিনি বলেন, ‘দুর্নীতি করবেন, আবার পার পেয়ে যাবেন, তাহলে কখনই দুর্নীতি দমন করা সম্ভব হবে না। যারা দুর্নীতি করে তাদের বিচারের আওতায় আনার ব্যবস্থা করতে হবে। ’
ইফতেখারুজ্জামান এ বছর দুর্নীতিবিরোধী দিবসটি সরকারিভাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়ায় সরকারকে সাধুবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘সরকারই পারে জনগণকে উজ্জীবিত করার মাধ্যমে দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে। জনগণকে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে সবাইকে একসঙ্গে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। দুর্নীতি প্রতিরোধের আন্দোলনে যারা সরব, তাদের নিরাপত্তা ও নিরপেক্ষভাবে কাজ করার সুযোগ করে দিতে হবে। ’
এই শপথ অনুষ্ঠানে বিডি ক্লিন, গার্লস গাইড, রোভার স্কাউটস, জাগো ফাউন্ডেশনও অংশ নেয়।

Top