রাত ৪:৪৬
২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ইং মুদ্রণ সংস্করণআজ মহান একুশে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসঅরণ্যের অধিকারআমার মা২১ গুণীকে একুশে পদক দিলেন প্রধানমন্ত্রীবৈঠকে খালেদার আইনজীবীরা, আপিল মোকাবেলায় প্রস্তুত দুদকঅস্ত্র বিক্রি নিয়ে অবস্থান বদলাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প?বিএনপি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ রাজনৈতিক দল : ওবায়দুল কাদেরমধু উৎপাদন বৃদ্ধি ও মৌমাছির নতুন প্রজাতি উদ্ভাবনে গবেষণা করুন : কৃষিমন্ত্রীসাবেক সংসদ সদস্য ইউসুফের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

বিয়ের আগে প্রশিক্ষণ!

ডেস্ক: আপনি কি জানতে চান কিভাবে বৈবাহিক সম্পর্ক  টিকিয়ে রাখতে হয়? শিগগিরই বিয়ে করবেন এমন তরুণদের নিশ্চয়ই এব্যাপারে আগ্রহী থাকবে। এজন্য আপনাকে যেতে হবে সুদূর সৌদি আরব। কারণ সেদেশে হয়ত বাধ্যতামূলক হতে পারে বিবাহপূর্ব প্রশিক্ষণ কোর্স।

দেশটিতে ক্রমবর্ধমান হারে বিবাহ বিচ্ছেদ ও এ সংক্রান্ত বিবাদ বেড়ে যাওয়ায় দেশটিতে বিয়ের আগে প্রশিক্ষণ কোর্স বাধ্যতামূলক করার ব্যাপারে সুপারিশ করা হচ্ছে। এ সুপারিশ করছে আলমাওয়াদ্দা পরিবার উন্নয়ন নামে একটি দাতব্য সংস্থা।

সংস্থাটির পরিচালক মোহাম্মদ আল রাদ্দি আরব নিউজকে বলেছেন, তাদের এ সেবায় ৩০হাজার পরিবার উপকৃত হয়েছে। ২০১৬ সালে সন্তুষ্টির হার প্রায় ৯২ শতাংশ।

সংস্থাটির বয়স প্রায় ১৫ বছর। তারা এর মধ্যেই ২০হাজার বিবাহযোগ্য পাত্রদের প্রশিক্ষণ দিয়েছে। তাদের প্রশিক্ষণের ফলাফলের ওপর জরিপও রয়েছে। ৩বছর আগে যারা বিয়ের আগে সংস্থাটিতে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, তাদের মধ্যে ৯৫ শতাংশ ব্যক্তিরই পারিবারিক জীবন সুখের হয়েছে বলে দাবি সংস্থাটির।

বৈবাহিক সমস্যার জন্য বিবাহিত জুটির জীবনে তৃতীয় পক্ষের নাক গলানোকে দায়ী করেন আল রাদ্দি। সংস্থাটির বিয়ের যোগ্যতা অর্জনের কর্মসূচি এমনভাবে সাজানো হয়েছে যাতে তরুণ নারী ও পুরুষরা সুন্দর ও দীর্ঘস্থায়ী বৈবাহিক সম্পর্কের সুযোগ পায়।

আল রাদ্দি বলেন, কোর্সে সফল জুটিদের জীবন কাহিনী শোনানো হয়। এতে তাদের বিবাহসম্পর্কিত অধিকার ও শরিয়া আইন অনুযায়ী তাদের কর্তব্য সম্পর্কেও জানানো হয়।

সৌদি আরবের সরকারের ভিশন ২০৩০ এর সঙ্গে সমন্বয় রেখে পরিবারগুলোর সামাজিক বন্ধন জোরদার করা এ সংস্থাটির লক্ষ্য। আল রাদ্দি পরামর্শ দিয়েছেন, যারা আগামীতে বিয়ে করতে যাচ্ছেন, তাদের এমন প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নিতে আইন মন্ত্রণালয় বাধ্য করা উচিত।

Top