রাত ৮:১৫
‘যেভাবেই হোক তারেককে দেশে ফেরত নেব’'বাংলাদেশের নাগরিকত্ব বর্জন করেছেন তারেক রহমান'ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ এর নেতৃত্বের দৌড়ে এগিয়ে যারা।22-04-2018s21-04-2018এ কি কুকুর নাকি পাখি?নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী নাজমুলের ১ দিনের রিমান্ডকর দিতে হবে সিএনজি মালিকদের : এনবিআরডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ছয়টি ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থীসঞ্জয়-মাধুরীর ভাঙা প্রেম জোড়া লাগাচ্ছেন করণ

শহীদ বুদ্ধিজীবী ও বিজয় দিবসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসূচি

ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উদযাপনে বিস্তারীত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। ঢাবি’র এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ এ কথা জানানো হয়।

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ১৪ ডিসেম্বর সকাল ৬টা ১৫ মিনিটে উপাচার্য ভবনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ৬ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জমায়েত এবং সকাল ৬টা ৩৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে কবরস্থান, জগন্নাথ হল প্রাঙ্গণে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক এলাকার স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ, মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণের উদ্দেশে যাত্রা, সকাল ১১টায় উপাচার্যের সভাপতিত্বে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে আলোচনা সভা। বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদসহ বিভিন্ন হল মসজিদ ও উপাসনালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া।

এছাড়া মহান বিজয় দিবসের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ১৬ ডিসেম্বর সকাল ৬টা ১৫ মিনিটে উপাচার্য ভবনসহ প্রধান প্রধান ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে ৬ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জমায়েত এবং সকাল ৬টা ৩৫মিনিটে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুস্পস্তবক অর্পণের উদ্দেশ্যে যাত্রা। বিকাল ৪টা ১০মিনিটে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ছায়ানটের যৌথ উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হবে সঙ্গীতানুষ্ঠান। সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে বিজয় দিবসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এরপর বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদসহ বিভিন্ন হল মসজিদ ও উপাসনালয়ে শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা এবং দেশের সমৃদ্ধি ও উন্নতির জন্য দোয়া।

উল্লেখ্য, গত ২৩ নভেম্বর নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে কর্মসূচি প্রণয়ন সংক্রান্ত এক সভায় এ-কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়।

Top